আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চাঁদা আদায়

ইজিবাইকথেকে  চাঁদা আদায় বন্ধের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ঝন্টু, কেশবপুর, যশোর প্রতিনিধিঃ

যশোরের কেশবপুরে  ইজিবাইক থেকে চাঁদা আদায়ের বন্ধের জন্য সংবাদ  সম্মেলন কেছেন ভুক্ত  ভুগিরা।

কেশবপুর টু মণিরামপুরের বেলতলা সড়কে ইজিবাইক থেকে চাঁদা আদায় বন্ধের দাবীতে শুক্রবার সন্ধ্যায় কেশবপুর উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে যশোর জেলা ম্যাক্সি রাইডার, চ্যাম্পিয়ান ও থ্রী হুইলার হিউম্যান হলার মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল রানা বলেন, মণিরামপুর উপজেলার বেলতলা টু কেশবপুর সড়কে ইজিবাইক থেকে মণিরামপুর উপজেলার হাজরাকাটি গ্রামের মৃত ছবেদ আলীর পূত্র আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লব প্রতিমাসে ৪ শত টাকা করে চাঁদা আদায় করে থাকে এবং নতুন ইজিবাইক ভর্তি বাবদ প্রথমে এককালীন ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা আদায় করে থাকে। চাঁদা আদায়ে তাকে সহযোগিতা করেন একই গ্রামের মুনছুর ও হাফিজুর এবং রসুলপুর গ্রামের মিজানুর রহমান টুলু।

ইজিবাইক ড্রাইভাররা আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লর ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর বিষয়টি আমাদের সমিতিতে অভিযোগ করলে আমরা সমিতির নেতৃবৃন্দ তাদেরকে চাঁদাবাজি করতে নিষেধ করি। এতে আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লব ও তার সহযোগিরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন চাঁদাবাজীর অভিযোগ এনে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের হস্তক্ষেপের মাধ্যমে মণিরামপুর উপজেলার বেলতলা টু কেশবপুর সড়কে  ইজিবাইক থেকে চাঁদা আদায় বন্ধের দাবী করা হয় এবং চাঁদাবাজদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে যশোর জেলা ম্যাক্সি রাইডার, চ্যাম্পিয়ান ও থ্রী হুইলার হিউম্যান হলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, প্রচার সম্পাদক ফিরোজ আহম্মেদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আয়ুব হোসেন, দপ্তর সম্পাদক দিলিপ সেন সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত জিয়াউর রহমান জিয়া ও প্রশান্ত বলেন, আমাদের নিকট থেকে জোর পূর্বক প্রতি মাসে ৪ শত টাকা করে আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লর ও তার সহযোগিরা আদায় করে। না দিলে তাদের উপর অমানুষিক নির্যাতন সহ মারপিট করা হয়। এব্যাপারে ২৫ আগস্ট কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট মণিরামপুর উপজেলার বেলতলা টু কেশবপুর সড়কে  আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লর ও তার সহযোগিদের চাঁদাবাজি থেকে রেহাই পেতে ইজিবাইক চালক লিটন, আতাউর, বাসার, আজাহার, এ্যাকুব, সালাম, মান্নান, বিধান, জিয়া, প্রশান্ত, আলমগীর, সাইদুল ও মুনতাছির লিখিত অভিযোগ করেছে।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap