আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের দাবীতে কেশবপুরে নিসচা’র সংবাদ সম্মেলন

কেশবপুর যশোর প্রতিনিধি:
পথ যেন হয় শান্তি, মৃত্যুর নয়। এই দাবীতে আনিত সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ আগামী ১ জানুয়ারী ২০২১ সালের মধ্যে বস্ত্তবায়নের দাবীতে রবিবার সকালে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) যশোরের কেশবপুর উপজেলা শাখার আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) কেশবপুর উপজেলা শাখার সভাপতি হারুন-অর-রশিদ বুল বুলের সভাপতিত্বে নিউজক্লাবের হলরুমে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) কেশবপুর উপজেলা শাখার সদস্য সচিব সাগর পারভেজ।
আহবায়ক মোঃ হারুনার রশীদ বুলবুল তার বলেন  পথ যেন হয় শান্তি, মৃত্যুর নয় এই স্লোগানে সামাজিক আন্দোলন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর জন্ম আজ থেকে প্রায় ২৭ বছর আগে ১৯৯৩ সালের ২২ অক্টোবর।
সড়ক দৃর্ঘটনায় চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের সহধর্মীনি জাহানারা কাঞ্চনের মৃত্যুর ফলে এই আন্দোলনের শুরু হয়। সেই থেকে সড়ককে নিরপদ করতে ও দিবসটিকে রাষ্ট্রীয় ভাবে পালনের দাবি জানিয়ে আসছেন। ধীরে ধীরে দাবিটি দেশের আপমোর জনগণের দাবিতে পরিণত হয়।
অবশেষে ২০১৭ সালে সরকার জনগণের দবির প্রতি সম্মান জানিয়ে দিবসটিকে জাতীয় স্বীকৃতি দিয়েছেন। সেই থেকে সরকারি ভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালিত হচ্ছে। আরো একটি দাবী ছিলো সময়োপযোগি সড়ক আইন, সেটিও পুরন হয়েছে। কিন’ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনার পরও ২০১৯ সালের ১ নভেম্বর প্রয়োগের দিন থেকে আইনটি হোচট খেল। বাধা হয়ে দাড়ালো পরিবহন সেক্টরের একটি অশুভ শক্তি।
কোন চাপের কাছে নতিস্বীকার না করে সরকার ২০১৮ সালে আইনটি জাতীয় সংসদে পাস করেন। এবং ১৫ মাস পর ২০১৯ সালে ১ নভেম্বরে কার্যকর করা শুরু হয়। আর পরিবহন সেক্টর পরিবহন বন্ধ করে দেয়।
এসব বাধার মুখে যদি আইনটি বাস্তবায়িত না হয় তাহলে আমরা দুর্ঘটনা মুক্ত বাংলাদেশ দারিদ্রমুক্ত ও এডিজি বাস্তবায়নের যে স্বপ্ন দেখছি তা পুরন হবেনা। সড়কে সেই মৃত্যুর মিছিল অসহায় পরিবারের কান্না চলতেই থাকবে। হেরে যাবে ১৮ কোটি জনতা। এই আইনটি শুধু ভারী যানবহন চালকদের জন্য নয়।
(বিআরটিএ’র তথ্যমতে সেপ্টেম্বরর ২০২০) যেমন বাস, ট্রাক, কার্গো ভ্যান, কাভার্ডভ্যান,ট্যাঙ্কর,ও বিশেষ ভারী বাহনের সংখ্যা ৩,১৯,১৪৭। অথচ সর্বমোট যানবহনের সংখ্যা ৪৫,৬৪,২৮৪। যার মধ্যে অ্যাম্বুলেন্স ৬,৮৯০, অটোরিক্সা ৩,১২,৭৭৮, টেম্পু ২০,৮৫৫, বাস ৫২,৯২৬, কার্গোভ্যান ৯,৭০৩, কাভার্ডভ্যান ৩৫,৫৬৫, ডেলিভারী ভ্যান ৩১,৬৭৭, হিউম্যান হুইলার ১৯,০৬২, জীপ ভারী/হালকা ৬৭,৬৬১, মাইক্রো ১০৬৬০৮, মিনিবাস ২৯৬২৭, মোটর সাইকেল ৩০৬৭৩০৩, পিকআপ ১৩৪২৩৮, প্রাইভেট ৩৭৩৯৬৬, স্পেশাল ১২৩১৭, ট্যাঙ্কার ৬০৪২, ট্যাক্সি ক্যাব ৪৫৩৭৯, টাক্টর ৪৭৩৫৬, ট্রাক ১৫৬২৩৮ ও অন্যান্য ২৯০৯৩।
আমি সকল চালকদের সচেতন হতে বলি। যদি সকলে আইন মেনে চলে তাহলে সড়কে দুর্ঘটনা কমে যাবে। যতদিন দুর্ঘটনামুক্ত নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠা না হবে ততদিন আমারা সড়কে আছি থাকবো। তাই আগামী ২ মাসের মধ্যে অর্থাৎ আগামী ১ জানুয়ারী ২০২১ সাল থেকে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাস্তবায়নের দাবি করছি।
সংবাদ সম্মেলনের সময় আরো উপসি’ত ছিলেন,আব্দুল মান্নান, , এম এ মান্নান, সুদীপ কুমার কুন্ডু, মাহবুর রহমান, আব্দুস সেলিম, শাহিন সাগর, সোহাইব হোসেন, শরিফুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন, অপু দেবনাথ প্রমুখ।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap