আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আগামী ৪ অক্টোবর শুরু হচ্ছে জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন

পাবনা থেকে-

আগামী ৪ অক্টোবর রোববার থেকে ১৭ অক্টোবর শনিবার সারাদেশ ব্যাপী শুরু হচ্ছে জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন।

এই ক্যাম্পেইন সুষ্ঠভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে পাবনার সিভিল সার্জন ডা: মো: মেহেদী ইকবাল ব্যাপক কর্মসুচি ঘোষণা করেছেন। কর্মসূচি অনুযায়ী ৬-১১ মাস বয়সী শিশুকে ১টি করে “নীল রঙের” ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানো এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুকে ১টি করে লাল রঙের ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে বলে পাবনা সিভিল সার্জন অফিসের জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট মো: রবিউল আলম ১লা অক্টোবর বৃহস্পতিবার হাস্যজ্জোল মুখে এ প্রতিবেদককে জানান।

এ জন্য পাবনায় মোট স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র থাকবে ১১টি, অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র থাকবে ১ হাজার ৯শ ৩টি, অতিরিক্ত কেন্দ্র থাকবে ১১টি। সর্বমোট টিকাদান কেন্দ্র থাকবে স্থায়, অস্থায়ী ও অতিরিক্ত মিলে মোট ১ হাজার ৯শ ২৫টি।

এ সব কেন্দ্রগুলোতে স্বেচ্ছাসেবক থাকবেন মোট ৩ হাজার ৮শ ৫০ জন। (মাঠকর্মী+স্বেচ্ছাসেক+১ম সারির তদারককারী) মোট ৪ হাজার ৮শ ৩ জন।

এই জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইনের মূল উদ্দেশ্য হলো শিশুর বয়স ৬ মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি পরিমাণ মতো ঘরে তৈরী সুষম খাবার খাওয়ানোর জন্য সকলকে বলতে হবে এবং ৬ মাস-৫৯ মাস বয়সী শিশুর রেজিষ্ট্রেশনের পাশাপাশি প্রতিবন্ধী শিশু চিহ্নিত করে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে।

ক্যাম্পেইন কেন্দ্রগুলো ৪ অক্টোবর রোববার থেকে ১৭ অক্টোবর শনিবার পর্যন্ত প্রতিদিন খোলা থাকবে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ক্যাম্পেইনের দিন যাদেরকে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না তারা হলো- (১) ৬ মাসের কম বয়সী শিশু (২)৫ বছরের বেশী বয়সী শিশু, (৩) ৪ মাসের মধ্যে ভিটামিন “এ” ক্যাসুল প্রাপ্ত শিশু ও (৪) অসুস্থ শিশু। যে সমস্ত শিশুর ঘর-বাড়ি নেই অর্থাৎ বেদে, রাস্তার শিশুদের অবশ্যই খুঁজে বের করে ক্যাম্পেইনের দিন ‘ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়া থেকে বাদ পড়ে থাকলে তাদেরকে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে।

এই ক্যাম্পেইনের মূল শ্লোগান হলো ভিটামিন “এ” খাওয়ান, শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমান,।

জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন পালন উপলক্ষ্যে গত ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার পাবনার সিভিল সার্জন অফিসের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের জন্য এক ওরিয়েনটেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। পাবনার সিভিল সার্জন ডা: মো: মেহেদী ইকবালের সভাপতিত্বে জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট মো: রবিউল আলম সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।

ক্যাম্পেইনের জন্য কেন্দ্রস্থাপন ও পরিচালনা-

ভ্রমনে থাকা শিশুরা যেন বাদ না পড়ে সে জন্য (প্রতি উপজেলায় ১টি করে এবং সিটি কর্পোশেন/পৌর এলাকায় প্রয়োজন অনুযায়ী) অতিরিক্ত কেন্দ্রের রেল স্টেশন, বাস টার্মিনাল, ফেরীঘাট, লঞ্চঘাট ইত্যাদি ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গ্রাম এলাকায় প্রতি ওয়ার্ডের ৮টি অস্থায়ী নিয়মিত টিকাদান কেন্দ্রকে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল বিতরণের জন্য ক্যাম্পেইন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে। ক্যাম্পেইনের পূর্বের দিনে ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন সমূহের ওয়ার্ডে মাইকিং করা হবে বলে পাবনা সিভিল সার্জন অফিসের জেলা ইপিআই সুপারিনটেডেন্ট মো: রবিউল আলম জানান। তিনি আরো জানান- জাতীয় পুষ্টিসেবা, জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আগামী ৪ অক্টোবর রোবার শুরু হতে যাওয়া জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন সফল করার লক্ষ্যে পাবনার সিভিল সার্জন ডা: মো: মেহেদী ইকবাল এই বৈষিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সময় সকল প্রস্তুতি সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করে ফেলেছেন।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap