আজ ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

গহনা আত্মসাৎ করে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ, স্বামী গ্রেফতার

বিশেষ প্রতিনিধি, সাভার (ঢাকা)
সাভারে এক গৃহবধূর বাবার বাড়ি থেকে পাওয়া ২৫ ভরি স্বর্ণের গহনা শ্বশুর শাশুড়ি আত্মসাৎ করার ঘটনায়, ঝগড়ার এক পর্যায়ে গৃহবধূকে স্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠে স্বামীর পরিবারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।
১২ আগস্ট ( শুক্রবার) সকালে হত্যার ঘটনায়, মরদেহ উদ্ধার ও অভিযুক্ত স্বামীকে আটক করার বিষয়টি আজকের দর্পণকে, সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) কাজী মাইনুল ইসলাম নিশ্চিত করেন।
এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে গৃহবধূ সামিয়া আক্তার (২৫) এর মৃতদেহ উদ্ধার করে সাভার থানা পুলিশ। সে মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইর উপজেলার মিজানুর রহমানের মেয়ে। এ ঘটনায় বাবা মিজানুর রহমান তিনজনের নামে মামলা করেন সাভার থানয়।
মৃতদেহ উদ্ধারের পর পরই স্বামী সাদনাম সাকিব হৃদয়(৩০)কে গ্রেপ্তার করা হয়। এবং অভিযুক্ত শ্বশুর জাকারিয়া হোসেন ও শ্বাশুড়ি জায়েদা পারভিন পলাতক থাকায় তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে বলে জানায় পুলিশ।
গৃহবধূ সামিয়ার ছোট মামা আশিকুর রহমান ইছা বলেন, ৫ বছর পূর্বে হৃদয়ের সাথে পারিবারিক ভাবে সামিয়াকে বিয়ে দেয়া হয়। তাদের দুই বছর বয়সি একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। বিয়ের সময় সামিয়াকে তার বাবা ও মামারা মিলে  ২৫ ভরি স্বর্ণের গহনা, মোটরসাইকেল, ও তিনলাখ টাকার ফার্নিচার দিয়ে ছিলেন। বিয়ের পরপরই কৌশলে ২৫ ভরি গহনা হাতিয়ে নেয় সামিয়ার শ্বাশুড়ি জায়েদা পারভিন। স্বর্ণের গহনা নিয়ে শ্বশুর-শ্বাশুড়ি ও স্বামীর সাথে  মাঝে মাঝে কথা কাটাকাটি হতো সামিয়ার।  গহনা নিয়ে কথা বললেই সামিয়াকে মারধর করা হত।
আশিকুর রহমান বলেন, গতকাল বেলা তিনটার দিকে সামিয়া ফোন করে আমাদের জানায় ওকে( সামিয়া)  মারধর করছে ওর স্বামী ও শশুর – শ্বাশুরি।  বেলা তিনটা ৩৭ মিনিটে সামিয়ার স্বামী আমাদের ফোনে জানায় সামিয়া স্টোক করেছে তাকে এনাম মেডিকেলে নেয়া হয়েছে। এনাম মেডিকেলে গিয়ে আমরা সামিয়ার মরদেহ দেখতে পাই।
সামিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তার মামা আশিকুর রহমান, সামিয়ার হত্যাকারীর বিচার চেয়ে বলেন, আমরা হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও ফাঁশি চাই।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap