আজ ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ধর্ষণ মামলায়

সাভারে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় পলাতক সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি গ্রেফতার

বিশেষ প্রতিনিধি :

সাভারের চাঞ্চল্যকর ১৪ বছরের কিশোরী ধর্ষণ ও ভভিডিও ধারন করা মামলার পলাতক আসামি সাভার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা’কে চট্টগ্রাম হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

২৮ (ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টার দিকে একটি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব-৪ সি,পি,সি-২ এর কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খান। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় ভুক্তভোগী কিশোরী পিতা-মাতাসহ সাভারের রাজাবাড়ী এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতো।

অন্যদিকে আসামী একটি রাজনৈতিক দলের ছাত্র শাখার স্থানীয় ইউনিয়ন সভাপতি। আসামী সোহেলের রাজনৈতিক কার্যালয় কিশোরীর বাসার কাছাকাছি হওয়ায়, গত সেপ্টেম্বর ২০২১ সালের দিকে প্রথম পরিচয় হয় সোহেল রানার সাথে। এক পর্যায়ে প্রেমের প্রস্তাব দেয় ওই কিশোরীকে। প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলে গত অক্টোবর ২০২১ সালে জোরপূর্বক সোহেল রানার ভাড়া করা ফ্ল্যাটে নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে এবং এ সময় অশালীন ছবি ও ভিডিও ধারণ করে রাখে সোহেল রানা। সেই ছবি ও ভিডিও এবং বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরবর্তীতে ধর্ষণ করে আসছিল অভিযুক্ত ছাত্রলীগনেতা সোহেল রানা। কুপ্রস্তাবে রাজি হতে না চাইলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে জিম্মি করে ওই ভুক্তভোগী কিশোরীকে।

সবশেষ গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সোহেল রানা ওই কিশোরীর গতিরোধ করে একই কায়দায় জোরপূর্বক ফ্ল্যাটে নিয়ে ধর্ষণ করে। এতে অসুস্থ হয়ে পরলে বাসায় এসে কিশোরী আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় তার মা আত্মহত্যার কারণ জানতে চাইলে বিষয়টি খুলে বলে ওই কিশোরী। পরে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে সভার মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পর থেকে ধর্ষক সোহেল রানা পলাতক থাকলে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব-৪ এর একটি গোয়েন্দা দল আসামী গ্রেফতারে ছায়া তদন্ত শুরু করে।

২৭ ফেব্রুয়ারি তারিখ ভোর ০৪.৫৫ টার সময় র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম শহর থেকে উক্ত চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামী মো. সোহেল রানা (২৭),’কে গ্রেফতার করে। র‌্যাব-৪ সি,পি,সি-২ এর কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খানের দেয়া ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী সোহেল ভিকটিমকে বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে তার ভাড়াকৃত ফ্ল্যাটে নিয়ে জোরপূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করেছে বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছে। ভিকটিম বিয়ের কথা বললে আসামী না করে এবং সাভার থেকে পালিয়ে চট্টগ্রামে আত্মগোপনে চলে যায়। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap