আজ ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

করোনাভাইরাস ও আমাদের করণীয়।

মাহমুদা আক্তার

বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ রূপ ধারন করছে। সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭৫৪১৯ জন এবং মৃতের সংখ্যা পঞ্চাশ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ ও মৃতের সংখ্যা ০৬। বাংলাদেশে বেশ কয়েক লক্ষ প্রবাসী করোনার কারণে দেশে ফেরত এসেছেন। এদের ভিতর কেউ কেউ ফেরত এসেছেন চাকুরী হারিয়ে যাদের ভবিষ্যৎ সম্পূর্ন অনিশ্চিত। এ অবস্থায় তারা করোনা আতঙ্কের পাশাপাশি চরম হতাশায় দিনাতিপাত করছেন।
সার্বিক করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সরকারের সাথে কাজ করছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ বেসরকারি সংস্থা ব্র‍্যাক। অভিবাসীদের মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি লক্ষ্য রেখে সম্প্রতি ব্র‍্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম চালু করেছে এক অভিনব টেলিকাউন্সিলিং সেবা। করোনা পরিস্থিতির কারণে চাকুরী হারিয়ে ফেরত আসা অভিবাসী বা অন্য যেকোন কারণে তারা দ্বন্দ্ব ও হতাশার সম্মুখীন হলে ব্র‍্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রোফেশনাল সাইকোসোশ্যাল কাউন্সিলর দ্বারা তারা পাচ্ছেন টেলিকাউন্সিলিং সুবিধা। এ ব্যাপারে ব্যাপারে ব্র‍্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের ঢাকা সেন্টারের সাইকোসোশ্যাল কাউন্সিলর মাহমুদা আক্তার বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে যারা ফেরত এসেছেন, তাদের অনেকেই হতাশাগ্রস্ত। একেতো এই ভাইরাসের সংক্রমণের ঘটনায় তারা তাদের পরিবার নিয়ে চিন্তিত, অন্যদিকে ভবিষ্যতে কর্মসংস্থান কী হবে, সেটা নিয়ে তারা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন। এমতাবস্থায় আমাদের টেলিকাউন্সিলিং তাদের মনোবল ও আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে। আমরা প্রচুর সাড়া পাচ্ছি। সবচেয়ে ভালো লাগছে অভিবাসীদের জন্য কিছু করতে পেরে।
উল্লেখ্য যে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি উদ্ভব হওয়ার পরে সরকারের পাশে থেকে ব্র‍্যাক যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে তা আসলেই প্রসংশার দাবি রাখে। ইতোমধ্যে পঞ্চাশ লক্ষ মানুষকে করোনা বিষয়ে সচেতন করার পদক্ষেপ নিয়েছে ব্র‍্যাক। এজন্য ব্র‍্যাকের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। গতকাল ব্র‍্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ আরো একটি মানবিক ঘোষণা দিয়েছেন যে, ১৫ কোটি টাকার তহবিল সংগ্রহ করে ১ লক্ষ মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেবে ব্র‍্যাক।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap