আজ ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সাভারে ভোট চলছে, স্বতন্ত্র প্রার্থীর কেন্দ্র বন্ধের দাবি জাপা প্রার্থীর নির্বাচন প্রত্যাহার

বিশেষ প্রতিনিধি:

ঢাকার সাভার উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন চলছে সকল থেকে। ভোট গ্রহণ হবে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) সকাল থেকে সাভারের কেন্দ্রগুলোতে  ভোটারদের উল্লেখযোগ্য উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। তবে ভোট শুরুর প্রথম দিকেই আশুলিয়া স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে প্রকাশ্যে ভোট মারার অভিযোগ আনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা। এসময় প্রশাসন নৌকার প্রার্থীকে সহযোগিতা করছে বলে অভিযোগ করে কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখার স্লোগান দেয়।

খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ আহমেদ হোসেন ও টহল রত এক প্লাটুন বিজিবি উপস্থিত হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ আহমেদ বিশৃংখলার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, সবে কাজ করছি, এখন কিছু বলতে পারছিনা ভোটগ্রহণ শেষে জানানো হবে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী হেলাল উদ্দিনের ভাই আমিনুল ইসলাম বলেন সকালেই কেন্দ্রে এসে নৌকার সমর্থকরা প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রকাশ্যে ছিল মারছে। এসময় ভোটারদের বের করে দেয় তারা। বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে তারা এরকম করে। কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ সুস্থ না হওয়ায় ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখার দাবি জানাচ্ছি।
৫ নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী মশিউর রহমান প্রশাসনের পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ করে বলেন,  আমরা এই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধের দাবি জানাচ্ছি।

ভোট দিতে আসা কয়েকজন বলেন আমাদের ভোট প্রদানে বাধা দিয়ে বের করে দেয়া হয়েছে তাই আমরা চলে যাচ্ছি।

পার্শ্ববর্তী কেন্দ্র আশুলিয়ায় স্কুল শাখার ২৫ নম্বর কেন্দ্রে ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদপ্রার্থী তালা মার্কা লেহাজ উদ্দিন মেম্বারের হাউমাউ করে কান্নার শব্দ শুনে সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে তিনি আহাজারি করে বলেন প্রিজাইডিং অফিসার সহ নৌকার লোকজন নৌকা মার্কায় ফুটবল মার্কায় সিল মারছে আমাকে বাঁচান।

প্রিজাইডিং অফিসার হারুনুর রশিদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার সামনে নৌকার কিছু লোকজন জোরপূর্বক সিল মারছিল আমি মারিনাই। সর্বোচ্চ ১০০ টার মত সিল তারা মারছে
আমি তাদেরকে অনুরোধ করেছিলাম না করার জন্য। এই ভোটগুলো আমি বাতিল করার ব্যবস্থা করব।

অন্যদিকে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আল কামরান দুপুর বারোটার দিকে নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা দেন।

তিনি জিরাবো দেওয়ান ইদ্রিস কলেজের কেন্দ্রে এসে ভোট নিরপেক্ষ না হওয়ার অভিযোগ তুলে তিনি নির্বাচন বয়কট করেন।

Hide quoted text

উপজেলা নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, বুধবার (৫ জানুয়ারি) উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে ক্ষমাতাসীন দল আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত নৌকা প্রতীকের ১১জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর পাশাপাশি আওয়ামী লীগের (বিদ্রোহী) ১১ জন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ৯ জন, জাতীয় পার্টির ২ জন, জাকের পার্টি ২ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর ১৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এতে মোট চেয়ারম্যান পদে ৫২, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১১৭ এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৫৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সহ সর্বমোট ৫২৬ জন। তার বাইরে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান,  সংরক্ষিত আসনে ২ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ১০ জন বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

সাভারে মোট ভোটার সংখ্যা ৫ লাখ ১২ হাজার ৩১৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার-২ লাখ ৬৭ হাজার ৬৮৯ জন ও মহিলা ভোটার-২ লাখ ৪৪ হাজার ৬২৫ জন।

ঢাকা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মুনীর হোসাইন খান বলেন, সাভারের ১১টি ইউনিয়নের ২৪১টি সুষ্ঠুভাবে ভোট চলছে। কোথাও কোনো সংঘর্ষের ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে বিজিবি-পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap