আজ ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সেনা সদস্য পরিচয়ে অভিনব কায়দায় অটোরিকশা ছিনতাই

বিশেষ প্রতিনিধি:

আশুলিয়ায় অবস্থিত সাভার ক্যান্টনমেন্ট চার্টার্ড এলাকায় আর্মি পরিচয়ে যাত্রী সেজে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।

 

বুধবার সন্ধ্যা ৬ টার দিকে দেশীয় অস্ত্রের মুখে অটোরিকশা চালককে রশি দিয়ে বেঁধে ৮০ হাজার টাকা মূল্যের অটোরিকশা ছিনতাই করে একটি সঙ্ঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রিকশাচালক বুধবার রাত ১১টার দিকে আশুলিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।

ভুক্তভোগী রিকশাচালক জানায় পল্লীবিদ্যুৎ স্ট্যান্ড থেকে এক ব্যক্তি নিজেকে সেনা অফিসার পরিচয় দিয়ে, ক্যান্টনমেন্টের ডেন্ডাবর গেটে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রিকশায় উঠে। রিকশা ক্যান্টনমেন্টের ডেন্ডাবর গেটের আগে, ক্যানবোর্ড স্কুলের ক্যান্টিন এর কাছাকাছি আসলে, ক্যান্টনমেন্টের একটি বন্ধ গেটের সামনে চালককে থামতে বলে। অন্যদিকে ছিনতাই চক্রের অন্য সদস্যরা একটি মাইক্রো নিয়ে রিক্সার সামনে দাঁড়ায়।

এসময় রিকশাতে থাকা ছিনতাইকারী রিকশাচালককে ওই গাড়ি থেকে একটি ফাইল এনে দেয়ার কথা বলে। রিকশাচালক গাড়ির কাছে যাওয়া মাত্রই গাড়ি থেকে দুইজন নেমে দেশীয় অস্ত্র দেখিয়ে তাকে চুপ থাকতে বলে এবং হাত-পা, বেঁধে ফেলে। রিকশাতে থাকা সেনা সদস্য পরিচয়দানকারী ওই ব্যক্তি অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে বাধা অবস্থায় রিকশা চালককে, আশুলিয়া হাইওয়ে মিনি সার্ভিসের একজন হেল্পার উদ্ধার করে।

 

রিকশাচালক সোহেল(৩৩) গাইবান্ধা জেলার, গোবিন্দগঞ্জ থানার, বাগদা বাড়ি গ্রামের, মোহাম্মদ হাবিল উদ্দিন এর ছেলে। সে কবরস্থান রোড এলাকায় মোহাম্মদ জাকীর হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকে । বড় গাড়ির সুপারভাইজার এর চাকরি করে জমানো টাকা দিয়ে, ৮০ হাজার টাকায় এই অটোরিকশাটি কিনেছিল বলে সে জানায়। বিগত পাঁচ মাস ধরে রিক্সা চালিয়ে জীবিকা অর্জন করে আসছিল সে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার এসআই হামিদ কায়সার জানান রাত ১১টার দিকে আমাদের কাছে ভুক্তভোগী এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। এসআই হাসিব শিকদারকে অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য তদন্ত ভার দেয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap