আজ ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৮ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কালিয়াকৈরে ফরম পুরণের টাকা আত্নসাৎ অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

 

ফজলুল হক, কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:

 

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি সরকারী কলেজের এইচএসসি পরিক্ষাথর্ীদের ফরম পুরণের কয়েক লাখ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক ও দুজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে রোববার বিকেলে কলেজে বিক্ষোভ করেছে অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষাথর্ীরা। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের দু-পক্ষের চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের, ছাত্রলীগ ও কলেজ কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারী কলেজে এ ঘটনা ঘটেছে। ২০১৯-২০ শিক্ষা বর্ষের টেস্ট পরিক্ষায় শতাধিক শিক্ষাথর্ী অকৃতকার্য হলে তাদের এইচএসসি’র ফরম পুরণ আটকে যায়। এ সুযোগে ফরম পুরণের কথা বলে ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেন টুটুল ও সাধারণ সম্পাদক মামুন মন্ডল অকৃতকার্য শিক্ষার্থদের কাছ থেকে ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার করে টাকা হাতিয়ে নেয়।

 

তারা দুজনে অসাধু কয়েকজন শিক্ষকের যোগসাজসে প্রায় কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ওই সময় প্রায় ৬০ জন শিক্ষার্থর কাছ থেকে টাকা আদায় করলেও ফরম পুরণ হয় মাত্র ২৭ শিক্ষাথর্ীর। প্রাণঘাতি করোনার কারণে বাংলাদেশ সরকার এইচএসসি পরিক্ষার্থদের অটো পাশের সুযোগ করে দেন। অটো পাশের ফল প্রকাশের পর ক্ষোভে ফেটে পড়ে বঞ্চিত শিক্ষার্থরা। এ ঘটনায় গত শনিবার অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষার্থ জাহিদ হাসান খান বাদী হয়ে ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেন টুটুল ও সাধারণ সম্পাদক মামুন মন্ডলের নাম উল্লেখ করে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

পরের দিন রোববার দুপুরে অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষার্থরা ওই কলেজ প্রাঙ্গনে হাজারি হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। খবর পেয়ে ওই কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক তাদের বিক্ষোভ থামাতে গেলে ছাত্রলীগের দু-পক্ষের চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় সভাপতি-সম্পাদককে অবরোদ্ধ করে অফিস কক্ষের সামনে বিভিন্ন শ্লোগানে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় বিক্ষুব্দ শিক্ষাথর্ীরা দুর্নীতিগ্রস্থ ওই সভাপতি-সেক্রেটারীর বহিষ্কারও দাবী করে। পরে তারা কলেজ অধ্যক্ষকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সুষ্ঠ সমাধানের সময় বেঁধে দেয়।

 

অটো পাশ বঞ্চিত শিক্ষার্থী জাহিদ হাসান, রাদিল হাসান, আব্দুর রউফ আহম্মেদ তারেক, রাব্বিসহ অনেকেই বলেন, আমরা প্রায় শতাধিক শিক্ষাথর্ী টেস্ট পরিক্ষায় ফেল করি। পরে কলেজ শাখার সভাপতি টুটুল ও সাধারণ সম্পাদক মামুন এইচএসসি পরিক্ষার ফরম পুরণের কথা বলে আমাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা করে নিয়েছে। আমরাও দ্বাদশ শাখার ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা, তাই বিশ্বাস করে তাদের টাকা দিয়েছি।

 

কিন্তু শনিবার দেশনেত্রী এইচএসসি পরিক্ষার অটো পাশ দেন। সেখানে আমাদের নাম না থাকায় বুঝতে পারি, আমাদের ফরমপুরণের কয়েক লাখ টাকা সভাপতি-সেক্রেটারী আত্নসাৎ করেছে। আমরা এখন দুনর্ীতিগ্রস্থ কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি-সেক্রেটারীর বিচার চাই, এক বছর ফেরত চাই।

 

অভিযুক্ত ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেন টুটুল ও সাধারণ সম্পাদক মামুন মন্ডল জানান, তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ঠিক নয়। কলেজের শিক্ষক ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোবারক হোসেন স্যার এবং আব্দুর রাজ্জাক স্যার ওই শিক্ষার্থদের কাছ থেকে ফরমপুরণ বাবদ টাকা নিয়েছে। আমরা তাদের মধ্যস্থ মাত্র।

 

অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুর রাজ্জার জানান, একটি কু-চক্র মহল আমাকে ফাঁসানো জন্য মিথ্যা প্রচারনা চালাচ্ছে।

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মেজবাহ উদ্দিন সরকার জানান, আমি যোগদানের আগেই ওই শিক্ষার্থদের এইচএসসি পরিক্ষার ফরম পুরণের সময় শেষ হয়েছে। এ বিষয়টি গতকালই মৌখিকভাবে আমাকে জানানো হয়েছে। এখন যেটা হয়েছে, সেটা পুরণ করার সুযোগ নেই। কিন্তু ওই শিক্ষার্থদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বিনা খরচে এ বছর পড়ানো ব্যবস্থা করা হবে। তবে যাচাই-বাচাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্ (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এ ঘটনায় কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ হয়েছে।

 

 

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap