মানিকগঞ্জে পল্লী সমাজের উদ্যোগে আয়োজিত লাল কার্ড প্রদশর্নে উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

বিশেষ প্রতিনিধি- মুহাম্মদ শামসুল হক বাবু

বাল্য বিয়ে ও নারী নির্যাতনমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে “১৮’র আগে বিয়ে নয়; কুড়ির আগে সন্তান নয়” এই শ্লোগান নিয়ে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নের বাহাদিয়া গ্রামে ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচি কর্তৃক পরিচালিত দরিদ্র নারীদের গ্রামীণ সংগঠন ১৩ নং বাহাদিয়া পল্লী সমাজের ‍উদ্যোগে বাল্য বিয়ে ও নারী নির্যাতন বন্ধে ৬ নভেম্বর বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায় এক উঠান বৈঠক ও লাল কার্ড প্রদর্শণ করা হয়।

উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেলা রহমতল্লাহ। অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ারা খাতুন, জয়মন্টপ ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শাহাদৎ হোসেন, বিআরডিবি চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, জেলা ব্র্যাক প্রতিনিধি আবু জাফর, ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন সিনিয়র জেলা ব্যবস্থাপক শোভন বিশ্বাস, ব্র্যাক সিংগাইর শাখার ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচির এলাকা ব্যবস্থাপক মোঃ আবিদ হাসান, ইউপি সদস্য ঝর্ণা আক্তার, ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির কর্মসূচি সংগঠক মোঃ শহিদুল ইসলাম, ব্র্যাক মাইগ্রেশন কর্মসূচির মোঃ মোকাররম হোসেন প্রমুখ।

সভায় সভাপতিত্ব করেন পল্লী সমাজের সভাপ্রধান সুফিয়া খাতুন। সভায় কর্মসূচির লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন সিনিয়র জেলা ব্যবস্থাপক শোভন বিশ্বাস।
সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, বর্তমান সরকার বাল্য বিয়ে ও নারী নির্যাতনকে শূন্য কোঠায় আনার জন্য ব্যাপক কাজ করছে। সমাজ থেকে এই ব্যধি দূর করতে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। গ্রামীণ জনগোষ্টিকে বিশেষ করে নারীদের একত্রিত করে এই ধরনের সংগঠন করার জন্য ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচিকে ধন্যবাদ দেন।

উঠাণ বৈঠকে বিভিন্ন বয়সী শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করে। উঠান বৈঠক শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে উপস্থিত সকলে বাল্য বিয়ে এবং নারী নির্যাতনকে না বলে লাল কার্ড প্রদর্শণ করেন।
উল্লেখ্য যে, এর আগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচি, স্বাস্থ্য কর্মসূচি, ওয়াশ, মাইগ্রেশন, মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচি পরিদর্শন করেন। এছাড়াও তিনি ব্র্যাক সিংগাইর উপজেলা অফিসের সকল কর্মসূচির প্রধানদের সাথে মতবিনিময় করেন।