নয়নজুলি খাল উদ্ধারে বাঁধা, স্থানীয় ৪ প্রভাবশালীর ১৪ দিনের জেল।

খোরশেদ আলম, সাভার প্রতিনিধি
রাজধানী ঢাকার উপকন্ঠ শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার সরকারি নয়নজুলি খালের অবৈধ দখলে থাকা ৫৬ শতাংশ ভূমি দখলমুক্ত করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়া নয়নজুলি খালটির অপর একটি স্থানের অবৈধ দখলদারের উচ্ছেদ করতে গেলে স্থানীয় ৪ প্রভাবশালী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে বাঁধা প্রদান করেন। এই অপরাধের অভিযোগে প্রভাবশালী চার ব্যক্তিকে পৃথক ১৪ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।
১৫ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকেলে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায়র বিনোদন কেন্দ্র থিমপার্ক ফ্যান্টাসি কিংডম সংলগ্ন এলাকায় নয়নজুলি খাল উদ্ধার অভিযানে যায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আশুলিয়া রাজস্ব সার্কেলের সহকারী কমিশনার ( ভুমি) তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ।
এর আগে দুপুর থেকে শুরু হওয়া অভিযানে আশুলিয়ার খেজুর বাগান এলাকায় লিজা হারবাল, শবনম ইয়াসমিন ও কসমো পলিটন নামে কারখানার দখলে থাকা নয়নজুলি খালের জমি উদ্ধারে অভিযান পরিচালিত হয়।
দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- জামগড়া এলাকার মোশারফ হোসেন, রুহুল আমিন, জসিম উদ্দিন ও কামাল চৌধুরী।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আশুলিয়া রাজস্ব সার্কেলের সহকারী কমিশনার ( ভুমি) তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে আশুলিয়ার খেজুর বাগান ও পুকুরপাড় এলাকায় সরকারি জলাশয়ের অবৈধ ভাবে দখল করা জমি উদ্ধারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় খেজুর বাগান এলাকার কসমো পলিটন (সিপিএল) নামে একটি কারখানার দখলে থাকা ১৮ শতাংশ ভূমি দখলমুক্ত করা হয়। এসময় খাল ভরাট করে নির্মাণ করা বেশ কিছু আধাপাকা স্থাপনা গুড়িয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া পুকুরপাড় এলাকার লিজা হারবাল ও শবনম ইয়াসমিন নামে আরো দুটি কারখানার দখলে থাকা সরকারি জলাশয়ের আরো ৩৮ শতাংশ ভূমি উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরও জানান, অপরদিকে বিকেলে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় সরকারি নয়নজুলি খাল উদ্ধার অভিযানে গেলে স্থানীয় চার প্রভাবশালী ব্যক্তি উদ্ধারকাজে বাঁধা প্রদান করেন। এসময় তাদের আটক করে প্রত্যেককে পৃথক ১৪ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। সরকারি জলাশয় ও খাল দখল করে অবৈধ ভাবে স্থাপনা নির্মাণকারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালিত হবে বলেও জানান তিনি।
অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের আশুলিয়া থানা পুলিশের কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।