স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মেধাবী সন্তানদের মাঝে বৃত্তি প্রদান

সোহেল রানা, পাবনা প্রতিনিধিঃ

শনিবার (২৯ জুন) স্কয়ার কর্মচারী সমিতির উদ্যোগে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মেধাবী ছেলে মেয়েদের মাঝে বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। এ বছর জে এস. সি, এস. এস. সি, এইচ এস সি এবং অনার্সে মোট ৮১ জন ছেলে মেয়েকে এ বৃত্তি প্রদান করা হয়

শনিবার বিকেলে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ পাবনা ইউনিট এর কনফারেন্স রুমে ২০১৮ সালের ১৬তম বার্ষিক বৃত্তি প্রদান উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় উক্ত অনুষ্ঠিানে স্কয়ার কর্মচারী সমিতির সভাপতি মিঃ অলোক কুমার চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্যদেন স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ পাবনা ইউনিট এর আবাসিক উপদেষ্টা দবির উদ্দিন আহ্মেদ, জেনারেল ম্যানেজার টেকনিক্যাল অপারেশনস্মোঃ মিজানুর রহমান, সিঃ ম্যানেজার এইচ আর ডি (সি এইচ কিউ) মিঃ সাগর হালদার।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজার ট্যাক্স মিঃ অসিত কুমার সাহা, সাধারন সম্পাদক মোঃ রবিউল করিম, ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য বৃন্দ ও বিভিন্ন ইউনিট থেকে আগত স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দসহ তাদের সহধর্মিনী এবং বৃত্তি প্রাপ্ত মেধাবী ছেলে মেয়েরা।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই সাধারন সম্পাদক মোঃ রবিউল করিম স্কয়ার পরিবারে সাফল্য গাঁথার রুপকার, প্রেরনার উৎস, প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান স্যামসন এইচ চৌধুরীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পর্দার নেপথ্যে থেকে প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান স্যারকে উৎসাহ এবং অনুপ্রেরনা জোগানোর জন্য এবং আমাদের সকলকে তাঁর ভালোবাসা এবং মমতায় আগলে রাখার জন্য স্কয়ার মাতা মিসেস অনিতা চৌধুরীকে শ্রদ্ধাবনতচিত্তে অনুষ্ঠান থেকে তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

২০০৩ সালে স্কয়ার গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান তাঁর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মেধাবী ছেলে মেয়েদের মেধাবিকাশের লক্ষ্যেএই বৃত্তি প্রদানের শুভ সুচনা করেন।

সেই থেকে প্রতিবছর এই বৃত্তি প্রদান কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। উক্ত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে সিঃ ম্যানেজার এইচ আর ডি (সি.এইচ.কিউ) মিঃ সাগর হালদার মেধাবী ছেলে মেয়েদেরকে ফুলের বাগানের ফুলের সাথে তুলনা করে বলেন, ফুল যেমন বাগানের সৌন্দয্য বৃদ্ধি করে ঠিক তোমরাও যেন ভাল মানুষ হয়ে ভবিষ্যতে স্কয়ার গ্রুপের বিভিন্ন ইউনিটে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে স্কয়ার পরিবারের মুখ উজ্জ্বল করে তুলতে পারো সে জন্য উৎসাহ প্রদান করেন।

পাবনা ইউনিটের জেনারেল ম্যানেজার টেকনিক্যাল অপারেশনস্মোঃ মিজানুর রহমান ছেলে মেয়েদের পড়া লেখার ক্ষেত্রে মা’দের ভূমিকার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন, পাশাপাশি বাবাদেরকে ছেলে মেয়েদের পড়ালেখার প্রতি খোঁজ খবর নেওয়ার দাগিদ প্রদান করেন।

তিনি আরও বলেন শুধু জে. এস.সি, এবং এস. এস. সি তে জি.পি এ ৫ পেলে চলবে না বরং আরও উদ্যামী হয়ে মানসম্মত লেখা পড়ার মাধ্যামে প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষা দিয়ে ভাল কোন বিশ্ব বিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে।

এ সময় বৃত্তি প্রাপ্তদের পক্ষ হতে স্কয়ার কর্মচারী সমিতির এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন মোস্তফা কামালের মেয়ে মুনতাহেনা দৃষ্টি।

অভিভাবকদের মধ্য থেকে কয়েক জন বক্তব্য রাখেন এবং এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান এবং এই ধারা অব্যহত রাখার অহবান জানান।

সবশেষে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিঃ এর আবাসিক উপদেষ্টা দবির উদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রয়াত চেয়ারম্যান সাহেব কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মেধাবী ছেলেমেয়েদের উৎসাহ প্রদানের জন্য এই বৃত্তি প্রদান শুরু করেছিলেন। তাই তিনি এটাকে বৃত্তি না বলে উৎসাহ ভাতা হিসাবে আখ্যায়িত করেন।

তিনি সাগর হালদার এর কথায় একমত পোষন করে বলেন, ফুলের বাগানে যেন পোঁকা না লাগে সে দিকে বাবা মাকে খেয়াল রাখতে হবে।

তিনি বর্তমানে সামাজিক চরম অবক্ষয়ের কথা উল্লেখ করে বলেন, একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি অবশ্যই ছেলে মেয়েকে নৈতিক শিক্ষা দিতে হবে। আর এই নৈতিক শিক্ষা কেবল মাত্র পরিবার থেকেই পায়।

তাই তিনি একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন। স্কয়ার কর্মচারী সমিতির সভাপতি মিঃ অলোক কুমার চক্রবর্তীর শুভেচ্ছা বক্তব্যর মধ্যে দিয়ে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান শুরু হয় এবং শেষে সবাইকে ধন্যবাদ দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তী টানেন। বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেনসাধারন সম্পাদক মোঃ রবিউল করিম।