মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের ওপর আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা দিল

২০১৭ সালে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দেশটির সেনাবাহিনী ব্যাপক দমন অভিযান চালায়। এমন পরিস্থিতিতে রাখাইন ছেড়ে ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে পালিয়ে আসে।

রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর ভয়াবহ হত্যা ও বর্বরতা চালানোর অভিযোগে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিং অং লাইং এবং অন্য তিনজন শীর্ষ সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আমেরিকা।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে আমেরিকার নেয়া পদক্ষেপগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে কঠোর। ওই সেনা কর্মকর্তাদের পরিবারের সদস্যরাও এই নিষেধাজ্ঞার আওতাধীন।

অন্য কর্মকর্তারা হলেন ডেপুটি কমান্ডার ইন চিফ সো উইন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থান এবং ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অং অং। নিষেধাজ্ঞা আরোপের ফলে এই কর্মকর্তাদের প্রথমত আমেরিকায় প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। এছাড়া, আমেরিকায় তাদের ব্যক্তি মালিকানায় কোনো সম্পদ থাকলে তা সব জব্দ করা হবে। সেইসঙ্গে আমেরিকা এর সংশ্লিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ব্যবসায়িক লেনদেন করতে পারবে না তারা।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, আমেরিকাই প্রথম কোনো দেশ যারা মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে এমন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তিনি আরো বলেন, রাখাইন রাজ্যে নির্বিচারে হত্যা ও সহিংসতার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে এই কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। দুই বছর আগের সেই সহিংসতার যথেষ্ট প্রমাণও রয়েছে।