বৈরী আবহাওয়া ও ঠান্ডার কারণে ভোট কেন্দ্রগুলো ভোটার শূন্য

বিশেষ প্রতিনিধি- বাংলা পেপারঃ

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। সকালে বৃষ্টির মধ্যে ভোটার উপস্থিতি দেখা যায় খুব কম। তাই ভোটারদের তুলনায় প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশ ও আনসারের সংখ্যাই চোখে পড়েছে বেশি। সবাই মোটামুটি অলস সময় পার করছেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল এগারোটার দিকে অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারদের সাথে কথা বলে জানা যায় বৈরি আবহাওয়া ও ঠান্ডার কারণে ভোট কেন্দ্রগুলো এখন ফাঁকা, তবে আবহাওয়া ভালো হলেই ভোটাররা ভোট দিতে আসতে শুরু করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন প্রিজাইডিং অফিসাররা।

নির্বাচনে অংশ নেওয়া মেয়র প্রার্থী গণ স্বীকার করেছেন ভোটারদের উপস্থিতি কম হওয়ার কথা । সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উত্তরার আজমপুরের নবাব হাবিবুল্লাহ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম তাঁর নিজের ভোট প্রদান করেন অন্যদিকে দুপুর বারোটায় জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী সংগীত শিল্পী শাফিন আহমেদ ভোট দেন। তিনিও সাংবাদিকদের বলেন তুলনামূলক ভোটারদের উপস্থিতি কম হওয়ার কথা।

মোহাম্মদপুরে সরকারি কলেজ কেন্দ্র গাবতলী সরকারি বিদ্যালয় কেন্দ্র, টি এন্ড টি গার্লস হাই স্কুল কেন্দ্র, সহ বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে যেয়ে দেখা যায় , এসব কেন্দ্রে ভোটারদের থেকে, নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। তারা অলস সময় কাটাচ্ছেন। এছাড়া সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত কিছু কিছু কেন্দ্রে একটি ভোটও পড়েনি বলে জানা যায়।

সিইসি কে এম নূরুল হুদা বলেন আমরা ভোটকেন্দ্রের পরিবেশ সৃষ্টি করেছি। ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের সংখ্যা বৃদ্ধিকরণে এর থেকে আমরা বেশি কিছু করতে পারব না।

ঢাকা মহানগর উত্তরের আওয়ামী লীগের নেত্রীবৃন্দ বলছেন সকালে আবহাওয়া খারাপ, সেই তুলনায় ভোটার উপস্থিতি ভালো। বেলা বাড়ার সঙ্গে ভোটারের সংখ্যা বাড়বে বলে তাঁরা আশা করেন ।

তবে বেলা তিনটার দিকে এ সকল ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করে দেখা যায় সকালের অবস্থা বিরাজমান।