বঙ্গবন্ধু তুমি বিশ্ববন্ধু

– মুহাম্মদ শামসুল হক বাবু

একটি নক্ষত্র একটি নাম

শেখ মুজিবুর রহমান

একজন মহামানব

বাংলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মিলেন

রমনা রেসকোর্সে

ফেব্রুয়ারীতে একটি

উপাধি লাভ

ওই খলনায়ক

বিশ্বাসঘাতকরা তোমায়

করে হত্যা

কালো ইতিহাসের পাতায়

মীরজাফর ঐ কুলাঙ্গার।

জগতবাসী চিনেছে তুমি

শান্তির পায়রা অগ্রদূত

ভাগ্যবিধাতা আজ

হিমালয়ের উচ্চতায় সমাসীন

কতটা মানবহিতৈষী হলে

বিশ্ববন্ধু হওয়া যায় –

যতটা দেশপ্রেমিক হলে

বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা হয়।

ইতিহাস গড়া কারিগর

ছিলে ভালোবাসার কাঙ্গাল

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ তুমি

মাতৃভূমির গর্বিত বাঙ্গাল,

দিয়েছ ভূখণ্ড লাল

সবুজের উড়ন্ত ও দুরন্ত পতাকা

তোমাকে বায়ান্নর ভাষা

আন্দোলনেও খুঁজে পাই

বাংলার প্রতিটি ইঞ্চির

মৃত্রিকায় লুকিয়ে আছো।

ছয়দফা প্রস্তাবে লাহোর

বৈঠকে আগরতলা মামলা

জিন্নাহ’র পাকিস্তান যাবে

গোরস্থান ঠেলা সামলা।

ঐতিহাসিক সাতই মার্চ ভাষণ

সোহরাওয়ার্দীউদ্যান

মুক্তিযোদ্ধা বীর জনতা-

গৌরবদীপ্ত বীরত্বগাথা খনি

জয়বাংলা তুমি

মুক্তিযুদ্ধের ও বিজয়ের রণধ্বণি।

স্বদেশ প্রহরী তুমিই প্রথম

প্রহর- তুমিই শেষ প্রহর,

পূর্ণায়ত পদ্মের ন্যায়

তোমার উঁচু মাথা হয়নি নিচু।

যে ভিসু ভিয়াসের আগ্নেয়গিরি

লাভার মত জ্বলে

মৃত্যুঞ্জয়ী তুমি কালজয়ী

ইতিহাসের অমর কবিতা।

ধানমন্ডি লেকের পাড়ের

ওই বত্রিশ নম্বর বাড়ীতে,

মেহেরপুর বৈদ্যনাথতলা

মুজিবনগরের আম্রকানন

জাদুনগরী ও বঙ্গভবনের

প্রতিটি কক্ষের দেয়াল।

সেই বন্দী জীবনের ওই

কারাগারের রোজনামচায় –

তুমি মেহনতি গরীবের

মুজিব- থাকবে সদা সজিব।