পাকিস্তানে স্ত্রী খোজার নাম করে চীন পাচার কার্যক্রম চালাচ্ছে

আন্তর্জাতিক ডেষ্কঃ

চীনের এক যুবক পাকিস্তানের মাত্র ১৬ বছর বয়সী এক নারী মুকাদাস আশরাফের সঙ্গে বিয়ে হয়। তবে যুবকটি বিয়ে করার উদ্দ্যেশেই পাকিস্তানে এসেছিল।

অবশেষে আনুষ্ঠানিকতা সেরেই নিজ দেশে ফিরে যান তার স্ত্রী আশরাফকে নিয়ে। তবে বেশি দিন তারা একসাথে সময় কাটাতে পারেনি।



সন্তানসম্ভবা হয়ে ৫মাসের মধ্যেই মুকাদাস আশরাফ তার নিজ দেশ পাকিস্তানে ফিরে আসেন। কারন তার স্বামী তাকে অনেক মারধর করত।

আশরাফের মত এমন ঘটনা এই প্রথম নয়। পাকিস্তানে এমন অরো অনেক অসংখ্য হত দরিদ্র খ্রিষ্টান মেয়েদের সঙ্গে ঘটেছে।

আসলে এটি একটি পাচারচক্রের নিয়মিত কার্যক্রম। তারা খ্রিষ্টান ধর্মীয় গরিব মেয়েদের পছন্দ করে বিয়ে করে নিয়ে যায়।

সেখানে তাদের দাসী বানিয়ে রাখে। প্রয়োজন শেষ হলে তারা তাদের বাহিরে বের করে দেয়।

বিগত ১ বছরে গোটা পাকিস্তান জুড়ে চীন থেকে স্ত্রী খোঁজার নাম করে এভাবেই চলছে নারী পাচার কার্যক্রম।

আর এধরনের অপকর্মের সংঙ্গে স্থানীয় পাকিস্তানি বাসিন্ধারাও জড়িত।

পাকিস্তানি সমাজকর্মীরা জানিয়েছেন, চীন থেকে আসার পর দেশীয় দালালদের মাধ্যমে কম বয়সি মেয়েদের খোঁজা হয় বিয়ের জন্য।

বিভিন্ন গীর্জার বাইরে দাঁড়িয়ে তারা গরিব মেয়েদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করে। কেউ রাজি হলে তাদের পরিবারের সঙ্গে টাকার বিনিময়ও হয়।

এরই মাধ্যমে পাচারের কার্যক্রম পরিচালনা করে চীনারা।

পাকিস্তানের খ্রিষ্টান ধর্মের পরিবারগুলো টাকার জন্য রাজি হলে তাদের বোঝানো হয়, যে ব্যক্তি তাদের মেয়েকে বিয়ে করবেন তিনি ধনী।

সে কারণেই হাজার হাজার ডলার খরচ করে পাত্রীকে বিয়ে করে নিয়ে যান চীনা যুবকরা। কিন্তু বিয়ের পর বোঝা যায় আসল ঘটনা।

মুকাদাস আশরাফের মা-বাবাও তাই মনে করে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু মুকাদাস চীনে গিয়ে দেখতে পায়, ছোট্ট একটি ঘরের মধ্যে থাকেন তার স্বামী। তার ওপর শুরু হয় অত্যাচার।

বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয় তার। এমনকি তিনি কেন গর্ভবতী হচ্ছেন না, তা নিয়েও অত্যাচার করা হয় মুকাদাসের ওপর।

পরে পুলিশের ভয় দেখিয়ে কোনো মতে পাকিস্তানে ফেরেন মুকাদাস।



বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তান মানবাধিকার কমিশনের কর্তৃপক্ষ কাজ শুরু করেছে। ইতিমধ্যে পাকিস্তান এ ব্যাপার নিয়ে চীনকে কঠিন হুশিয়ারি দিয়েছে।

দেশটি বলছে, চীনের বিরুদ্ধে মানব পাচারের এমন অসংখ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। খুব শিগগির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অন্যান্য খবরঃ

পাবনায় ঊষা ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রদান