নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস পালিত

খোরশেদ আলম, সাভার প্রতিনিধি : আজ মহান বিজয় দিবস। বাঙালির বিজয়ের দিন। ১৯৭১ সালে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ আর দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এ দিনে বাঙালি জাতি ছিনিয়ে আনে বিজয়ের লাল সবুজ পতাকা। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে অবসান ঘটে দীর্ঘদিনের শোষণ বঞ্চনার।

ভোর ৬টা ৪৮ মিনিটে  জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

পরে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতিগণ, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সিইসি কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে কমিশনের সদস্যগণ,পর্যায়ক্রমে বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি কূটনীতিকবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনগণ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সকাল সোয়া ৯টায় এসে তার নেতৃত্বে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও ঢাকা-১৯ আসনের ধানের শীষের এমপি পদপ্রার্থী ডাঃ দেওয়ান মোঃ সালাউদ্দিন বাবু ও ঢাকা-২০ আসনের এমপি পদপ্রার্থী আলহাজ্ব তমিজ উদ্দিনসহ নেতা-কর্মী নিয়ে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানান।

এসময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, নির্বাচন প্রহশনে পরিনত হচ্ছে। বিএনপি ও  জোটের নেতা কর্মীদের হামলা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন।

সকাল ১০টা ২০ মিনিটে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন, আ, স, ম আব্দুর রবসহ  শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। এসময় ড.কামাল বলেন, মানুষের মুক্তির জন্য আমাদের আন্দোলন সংগ্রাম অব্যাহত রাখতে হবে। এসময় তিনি আগামী নির্বাচনে লাঠিয়াল বাহিনীকে পরিত্যাগের আহবান জানান ।

সিইসি কেএম নুরুল হুদা শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের বলেন, সব দলের অংশ গ্রহণের মাধ্যমে সুষ্ঠ নির্বাচন হবে ।

ঢাকা-১৯ নির্বাচনী আসনের আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ডাঃ এনামুর রহমান এর নেতৃত্বে সাভার ও আশুলিয়া আওয়ামীলীগ, যুবলীগ সহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এছাড়া বিভিন্ন ব্যক্তি ও সামাজিক সংগঠন, রাজনৈতিকদল, সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহ শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

যেসকল সংগঠন ফুল দিয়েছে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন- সেনাপ্রধান জেনারেল আব্দুল আজিজ, বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা জেলা পুলিশ,উপাচার্য-জাবি, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব ফয়জুন্নেসা হল, বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার, বাংলাদেশ কৃষকলীগ, জাহানারা ইমাম হল-জাবি, গণপূর্ত অধিদপ্তর প্রধান প্রকৌশলী, বাংলাদেশ প্রাক্তন সৈনিক সংস্থা-সাভার, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর ভাইস চ্যান্সেলর এর নেতৃত্বে শিক্ষকরা, বাংলাদেশ পরমানু শক্তি কমিশন কর্মচারী কল্যাণ সমিতি আশুলিয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, জাবি শিক্ষক সমিতি, জাবি মহিলা ক্লাব, শেখ হাসিনা হল জাবি,জাবি বেগম সুফিয়া কামাল হল, ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষনা কেন্দ্র, আফম কামাল উদ্দিন হল জাবি, মাওলানা ভাসানি হল-জাবি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব সলিমুল্লাহ মুসলিম হল, শহীদ রফিক-জব্বার হল জাবি, কর্মচারী সমিতি জাবি, উপাচার্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হল,এলামনাই এসোসিয়েশন জাবি, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হল জাবি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, শহীদ সালাম-বরকত হল জাবি,পক্ষাঘাত গ্রস্থদের পূণর্বাসন কেন্দ্র-সাভার, জাবি প্রেস ক্লাব, জাবি সাংবাদিক সমিতি, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, আনসার ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক-সফিপুর, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, মেয়র সাভার পৌরসভা, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, ঢাবি শিক্ষক সমিতি, ইনিস্টিটিউট অব লেদার ইঞ্জিনিয়ারং এন্ড টেকনোলজি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, স্যার পিজে হার্টগ ইন্টারন্যাশনাল হল-ঢাবি, ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি এন্ড সায়েন্স, গণ বিশ্ববিদ্যালয় রেজিষ্ট্রার দেলোয়ার হোসেন ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মোর্তজা আলীর নেতৃত্বে শিক্ষকবৃন্দ, কর্মসংস্থান ব্যাংক, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম,সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতি,বাংলাদেশ গার্মেন্টস এন্ড শিল্প শ্রমিক ফেডারেশন,জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন,বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব, হাজী মুহাম্মদ মহসিন হল ঢাবি, উপাচার্য বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল ঢাবি, বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধলীগ, পেশাজীবি লীগ ঢাবি, কেন্দ্রিয় গো প্রজনন ও দুগ্ধ খামার সাভার, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সাভার উপজেলা, সিটি মেডিকেল কলেজ গাজীপুর, ভারপ্রাপ্ত মেয়র ঢাকা  উত্তর সিটি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতি, মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন সম্পদ ইনিস্টিটিউট কৃষি মন্ত্রণালয়, জাবি ছাত্রফ্রন্ট, অফিসার্স ক্লাব ঢাকা, ইমিগ্রেশন পাসপোর্ট ঢাকা, বাংলাদেশ আইন সমিতি, জাসদ, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টাস এসোসিয়েশন, ঢাকা রিপোর্টারর্স ইউনিটি, বিএমএ, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক পার্টি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় নেত্রকোনা, বঙ্গবন্ধু টাওয়ার ভবন কল্যান সমিতি ঢাবি, বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ, সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ কর্মচারী, সাভার প্রেস ক্লাব, আশুলিয়া প্রেস ক্লাব, বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটি, স্যার এএফ রহমান হল ঢাবি, বাংলাদেশ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়, এডাব, ধামসোনা উইনিয়ন আওয়ামী লীগ, আশুয়িলা থানা যুবলীগ, আশুয়িলা থানা সেচ্ছাসেবকলীগ, সাভার উপজেলা আওয়ামীলীগ, সাভার থানা যুবলীগ, আশুলিয়া থানা জাতীয় পার্টি, বিএনপি সাভার উপজেলা, সেচ্ছাসেবকদল আশুলিয়া, বিএনপি ধামরাই উপজেলা, সাভার এনজিও সমš^য় পরিষদ, অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,ছাত্রদল কেন্দ্রিয় সংসদ, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক সংঘ, অগ্রনী ব্যাংক, প্রত্মতত্ত¡ অধিদপ্তর, প্রাইভেট মেডিকেল প্রাকটিশনারস, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল, বঙ্গবন্ধু আইনজীবি পরিষদ, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশন,হাজী ওয়াজউদ্দিন হাই স্কুল, আশুলিয়া থানা জাকের পার্টি, শিমুলিয়া নবীন সংঘ, নন্দন টেলিভিশন, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন(বিএডিসি), একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং কর্পোরেশন, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন, মহিলা লীগ ঢাকা জেলা, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, জনতা ব্যাংক, কৃষিবিদ ইনিস্টিটিউট, বিএসএস ফিসারিজ, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, বাংলাদেশ ডেভলপমেন্ট ব্যাংকসহ সর্বস্তরের জনগন শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছে।

মহান বিজয় দিবস ২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে আশুলিয়ার আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান ডিগ্রী কলেজ এর উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা এবং ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার ও মুক্তিযুদ্ধ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে আশুলিয়ার গোহাইলবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।