আজ ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩১শে মে, ২০২০ ইং

দ্বিতীয় পর্যায়ের দুটি ফ্ল্যাইটে ফিরলেন, ভারতে আটকা পড়া বাংলাদেশিরা

নিউজ ডেস্ক

ভারতে আটকে পড়া ৩১৮ জন বাংলাদেশিকে আজ (শনিবার) দুটি ফ্লাইটে ফেরত আনা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ের এই উদ্যোগে আজ দিল্লি হয়ে বাংলাদেশ বিমানযোগে ১৫১ জন এবং চেন্নাই হয়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সযোগে ১৬৭ জন যাত্রী দেশে ফিরেছেন।

নয়াদিল্লি থেকে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ ইমরান এসব তথ্য জানিয়েছেন। এ ছাড়া আগামী তিনদিনে মুম্বাই, কলকাতা ও দিল্লি থেকে বাংলাদেশ বিমানযোগে আরও প্রায় ৪০০ বাংলাদেশি দেশে ফিরবেন বলে জানান তিনি।

নয়াদিল্লির বাংলাদেশ হইকমিশন এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, দিল্লি থেকে ফেরত আসা যাত্রীদের মধ্যে ভারতে চিকিৎসার জন্য আসা উল্লেখযোগ্যসংখ্যক রোগী রয়েছেন। এ ছাড়া দিল্লি ও পাঞ্জাবের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরাও এই ফ্লাইটে দেশে এসেছেন।

দিল্লি ছাড়ার আগে ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ভারতে হাইকমিশনার ইমরানের নেতৃত্বে দূতাবাস কর্মকর্তাদের একটি দল যাত্রীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করেন।

বাংলাদেশ হাইকমিশন জানায়, চেন্নাই থেকে ফেরা যাত্রীদের অধিকাংশই রোগী ও তাদের সঙ্গে শুশ্রূষাকারী হিসেবে যাওয়া পরিবারের সদস্য।

বাংলাদেশ মিশন জানায়, ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের দেশে ফেরানোর জন্য ভারত সরকারের সব পর্যায়ে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করছে বাংলাদেশ হাইকমিশন। যারা এখনও দেশে ফেরার অপেক্ষায় তাদের আকাশ ও স্থলপথে ফেরানোর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

হাইকমিশন আরও জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে উভয় দেশের শীর্ষ নেতৃত্বের দিকনির্দেশনায় দু’দেশ একসাথে কাজ করছে। ভারত থেকে পাঠানো বিভিন্ন চিকিৎসাসামগ্রী উভয় দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের নিদর্শনস্বরূপ বাংলাদেশ বিমানের সৌজন্যে দেশে আনা হয়েছে।

এ ছাড়া সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ কেউ ভুল ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য পরিবেশন করছেন উল্লেখ করে বাংলাদেশ হাইকমিশন জানায়, তারা ভারতে লকডাউনের আংশিক শিথিলতার সুযোগে দেশে ফেরানোর প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে সুবিধা লাভের চেষ্টা করছেন। কিন্তু হাইকমিশনের মাধ্যমে ভারত সরকারের অনুমোদন গ্রহণ ছাড়া আন্তঃরাজ্য ভ্রমণে পথিমধ্যে আইনগত সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

‘প্রত্যাবর্তন সংক্রান্ত সব তথ্য হাইকমিশনের ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজে নিয়মিতভাবে আপলোড করা হচ্ছে । স্থলপথে ভ্রমণের ক্ষেত্রে অনুমতির জন্য পালনীয় নিয়মাবলি ইতোমধ্যে জানানো হয়েছে। হেল্পলাইনও চালু রয়েছে। তাই সবাইকে হালনাগাদ তথ্যের জন্য হাইকমিশন প্রদত্ত বিজ্ঞপ্তিগুলো অনুসরণ করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে’, – বলা হয় ওই বিজ্ঞপ্তিতে।

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap