দুর্দান্ত লড়াইয়ের পর কোপার ফাইনালে ব্রাজিল !

বাংলা পেপার ডেস্ক :

কোপা আমেরিকার মঞ্চে শুরু থেকেই নড়বড়ে ছিল আর্জেন্টিনা। কলম্বিয়ার বিপক্ষে পরাজয় দিয়ে হোঁচট খায় আলবিসেলেস্তেরা। পরের ম্যাচে প্যারাগুয়ের সঙ্গে ড্র করে আবারও ধাক্কা খায় মেসির দল। পরে কাতারকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে। এরপর শেষ আটে ভেনেজুয়েলাকে  হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়।

অন্যদিকে পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই দারুণ ফুটবল খেলেছে ব্রাজিল। গ্রূপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই কোয়ার্টার ফাইনাল, এরপর প্যারাগুয়েকে ট্রাইব্রেকারে হারিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট পায় তিতের দল।

খেলার নবম মিনিটের মাথায় আর্জেন্টাইন রক্ষণে করে স্বাগতিকরা। ফরোয়ার্ড গ্যাব্রিয়েল হেসুসকে রুখতে গিয়ে ফাউল করে বসেন নিকলাস তালিয়াফিকো। ম্যাচের দশ মিনিট হওয়ার আগেই প্রথম হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

১৯ মিনিটেই প্রথম গোল করে ফেলে ব্রাজিল। অধিনায়ক দানি আলভেস দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে রবার্তো ফিরমিনোকে উদ্দেশ্যে করে বল সামনে বাড়ান। তবে তিনি তা রিসিভ না করে সরাসরি পাস দেন গ্যাব্রিয়েল হেসুসকে। সুযোগসন্ধানী হেসুস কোনো ভুল করেননি গোলের সহজতম এ সুযোগটি কাজে লাগাতে।

আর্জেন্টিনার সামনে এ গোল শোধ করার এক সুযোগ আসে ৩০তম মিনিটে। বাম পাশ থেকে লিওনেল মেসির ফ্রি-কিকে সবার চেয়ে ওপরে লাফিয়ে মাপা হেড করেন সার্জিও আগুয়েরো। কিন্তু সেটি গিয়ে আঘাত হানে ক্রসবারে। সেবারও গোল মিস করে আর্জেন্টিনা। এভাবেই ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধের খেলা শেষ করে ব্রাজিল |

বিরতি থেকে ফিরে ৭১তম মিনিটেই ফিরমিনোর গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ব্রাজিল। মাঝমাঠ থেকে জেসুস ডি-বক্সে ঢুকে ডান দিকে বল বাড়ান। ফাঁকায় বল পেয়ে বাকিটা সারেন ফরোয়ার্ড ফিরমিনো।

এই গোলেই জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায় স্বাগতিকদের। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে একযুগ পর কোপার ফাইনালে উঠলো ব্রাজিল। ২০০৭ সালে সবশেষ ফাইনাল খেলেছিল ব্রাজিল।

কোপা আমেরিকার নকআউট পর্বে এ নিয়ে পাঁচবারের লড়াইয়ে প্রতিবার ব্রাজিলের কাছে হেরেছে আর্জেন্টিনা। ১৯৯১ সালে সবশেষ কোপায় ব্রাজিলকে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনা।

ম্যাচটি নিয়ে দুই দেশের সমর্থকদের মধ্যে তুমুল উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। শেষমেশ ব্রাজিল সমর্থকদের মুখে হাসি। আর আরেকবার হতাশায় ডুবল আর্জেন্টিনার সমর্থকেরা।এবারের কোপায় সবচেয়ে ফেবারিট ব্রাজিল। তারা দুর্দান্ত গতিতে ছুটেই ফাইনালে উঠল।