জাহাঙ্গীরনগরের আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি।

বিশেষ প্রতিনিধি:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়র আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের, আন্দোলনের মুখে তিনটি দাবির দুটি মেনে নিয়ে বাকি একটি সমাধানে বৈঠকে বসেছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.ফারজানা ইসলাম।

জাবিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতির প্রতিবাদে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবির প্রথম ও দ্বিতীয় দফা দাবি মেনে নিলেও তৃতীয় দফা দাবি মেনে নেয়নি জাহাঙ্গীরনগর জাবিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন।

তৃতীয় দফা দাবির বিষয় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে বুধবার বিকেল ৪:০০টা থেকে বৈঠক শুরু হয় রাত ৮:৩০মি. পর্যন্ত চলে।

বৈঠক শেষে জাহাঙ্গীরনগর জাবিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ ফারজানা ইসলাম আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি অনৈতিক ও অযৌক্তিক বলে দাবি করেন।

তিনি বলেন, আমার পদত্যাগ দাবি করেছে তারা, আমার পদত্যাগ আমি করতে পারি না। ঊর্ধতন মহল থেকে আমাকে বলেলে আমি আমার দায়িত্ব থেকে সরে আসতে পারি।

তিনি আরো জানান এ ব্যাপারে আন্দোলনরত শিক্ষঅর্থীদের সাথে আলোচনা ও বৈঠকের আর কোনো সম্ভাবনা নেই।

এদিকে বৈঠক শেষ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ও শিক্ষকের একাংশ সংবাদ সম্মেলনে করে বলেন,  টাকা ভাগাভাগির বিষয়ে ফোনালাপের অডিও প্রকাশ হওয়ার পর দুর্নীতির বিষয়টি পুরোপুরি প্রমাণ হয়েছে । এজন্য তারা মনে করছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের অপসারণই হচ্ছে এর সমাধান।

তাই চলতি মাসের ৩১ তারিখের মধ্যে ভিসি পদত্যাগ না করলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন তারা।